রোমান্টিক_বুডো_বর #পর্ব_৪ #মোহাম্মদ_আবদুল্লাহ

0
240

#রোমান্টিক_বুডো_বর
#পর্ব_৪
#মোহাম্মদ_আবদুল্লাহ
দুপুর হয়ে এলো তাই আমি নিচে এসে দেখি আম্মু টেবিলে খাবার সাজিয়ে বসে আছে , সাথে আব্বু ও।
(আমি গিয়ে টেবিলে বসে আম্মু কে বললাম)
,
আমি: আম্মু খেতে দাও তো খুব জোরে খিদে লেগেছে।
,
আম্মু:জামাই কোথায়,
জামাইকে নিয়ে আসতে পারলি না মা।
,
আমি: আমি জানি না তোমাদের জামাই কোথায়,
আর আমি পারবো না আনতে ডেকে ,
তোমাদের জামাই তোমরাই আনো গিয়ে।
,
আব্বু:কি হচ্ছে কি এসব 😒তুলি,
দিনে দিনে বড় হচ্ছো আর বেয়াদব হচ্ছো ।
যাও এখনি পারভেজ কে ডেকে নিয়ে এসো।
এ নিয়ে আর একটাও কথা আমি শুনতে চাই না।
,
আমি: আব্বুর কথা শুনে আমার কান্না😭 চলে আসলো ,
কোনো রকমে টেবিল থেকে উঠে চলে আসলাম,
হাদারামটাকে ডাকতে।
,
আম্মু:এই কি দরকার ছিলো মেয়েটাকে এমন করে বকার ।
এমনিতেই তো আমার মেয়েটার মন খারাপ,
তার উপরে তুমি এমন করতে পারলে।
,
আব্বু:দেখো তুলির মা আমি যা করেছি মেয়ের ভালোর জন্যই করছি।
আর আমার যতোটুকু মনে হয় এখনোও তোমার মেয়ে পারভেজ কে মেনে নেই নি।
তাই আমি চাই আমার মেয়ে বুঝুক পারভেজ এর কাছেই ওর আসল ঠিকানা।
,
আম্মু:এর কারনে তো ও তোমার কাছ থেকে দূরে সরে যাচ্ছে ,
,
আব্বু: তুমি চিন্তা করো না, যখন তুলি পারভেজ কে মেনে নেবে তখন আপনা আপনিই ও বুঝবে আমি ওর ভালো ছাড়া খারাপ চাইনি।
,
আম্মু:তাই জেনো হয় গো , আল্লাহ আমার মেয়েটাকে বুঝ দিক ।
,
,
ঘরে ঢুকার আগে আমি চোখের পানি মুছে ফেললাম যাতে বুড়ো টা না দেখতে পায় আমি কাঁদছি,
নয়তো আবার লজ্জা দেবে বাচ্চা বলে,
ঘরে ঢুকে দেখি আমার বুড়ো বরটা আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে চুল আঁচড়াতে ব্যস্ত।
,
আমি:এই যে শুনছেন—
,
পারভেজ: হুম বলো ,
,
আমি: আম্মু নিচে ডাকছে আপনাকে ,খাবেন চলুন।
,
পারভেজ:ওহ আচ্ছা তুমি যাও আমি আসছি
,
আমি: আমি যাবো মানে , আব্বু বলেছে আপনাকে সাথে করে নিয়ে যেতে বুঝলেন।
,
পারভেজ: আব্বু বলেছে তাই এসোছো ,
আমি তো মনে করেছি আমাকে ভালোবেসে নিতে এসেছো।😐
,
আমি:ইসসস কি শখ আমি উনাকে ভালোবেসে নিতে আসবো 😏,
আমার তো বয়েই গেলো আপনার মতো বুড়োকে ভালোবাসতে 😏
,
পারভেজ: একদিন ঠিকই ভালোবাসবে এই বুড়োকে মনে রেখো।
,
আমি:সেগুরে বালি , আপনার এই শখ কখনোই পূরণ হবে না বুঝলেন।
,
পারভেজ:সময় সব বলে দেবে💞
,
আমি: ওকে ,এখন চলুন নিচে সবাই অপেক্ষা করছে।
,
পারভেজ:হে চলো ☺️
,
(টেবিলে বসে আমি খাচ্ছি আর আমার বুড়ো বরটা আর আব্বু আম্মু বকবক করছে আর আমি দাঁতে দাঁত চেপে নিচের দিকে তাকিয়ে খেয়ে যাচ্ছি)
,
আব্বু:তা বাবা পারভেজ , তোমার চাকরির খবর কি?
,
পারভেজ: এইতো আব্বু ভালোই ,
,
আম্মু:তা তোমার বোনেরা কেমন আছে বাবা?
,
পারভেজ:জি আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছে।
,
আব্বু:তা বাবা কয়েক দিন থাকতে হবে কিন্তু।
,
পারভেজ: না আব্বু কালকেই চলে যেতে হবে , কালকেই ছুটি শেষ।
,
আম্মু:কি বলো কি বাবা মাএ আজ এলে,
আর কালকেই চলে যাবে তা কেমন করে হয়।
আর মেয়েটাও মাএ এলো
,
,
পারভেজ: না মানে আম্মু,ছুটি তো শেষ তাই আর কি।
কিন্তু তুলি যদি কয়দিন থাকতে চায় ও থাকুক পরে এসে না হয় আমি নিয়ে যাবো।
,
আমি:(আমি হঠাৎ বলে উঠলাম — না আমি ও চলে যাবো আপনার সাথে )
,
আম্মু:কেনোরে মা ?
,
আমি: এমনিতেই থাকবো না ।
,
আব্বু: আচ্ছা সে যাবা যাবে না হয় এখন কথা না বলে জামাইকে খেতে দাও তুলির মা
,
(আমি মনে করেছিলাম আব্বু একটাবার হলেও বলবে তুলি মা কয়েক দিন থেকে যা ,
কিন্তু আব্বু একটি বার ও বললো না)
,
খাবার শেষ করে আমি চলে গেলাম রুমে সাথে আমার বুড়ো বরটাও।
আমি আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে আছি আর উনি ঘরে এসে শার্ট প্যান্ট পড়ছে।
,
আমি: কোথায় যাচ্ছেন ,এই ভরদুপুরে আপনি?
,
পারভেজ: তেমন কোথাও না , আমার এক কলিগ এর সাথে দেখা করতে।
,
আমি: ছেলে না মেয়ে 🙄 কলিগ।
,
পারভেজ: মেয়ে কলিগ, খুব ভালো মেয়েটা ☺️
,
আমি: (😠 খুব ভালো তাই না) তা বিবাহিত নিশ্চয়।
,
পারভেজ:আরেহ না,এখনোও বিয়ে করে নি।
,
আমি:কেনো বিয়ে করে নি 😡
,
পারভেজ: আজব কেনো বিয়ে করে নি তা আমি কি জানি।আর ও দেখতে ও অনেক সুন্দর😜
,
আমি:(অনেক সুন্দর তাই না 😠😠বুড়ো লুচু , দাঁড়া তোকে দেখাব মজা (মনে মনে) )
আচ্ছা কেমন সুন্দর মেয়েটা
,
পারভেজ: দাঁড়াও বলছি (এই বলে পারভেজ আমার কাছে আসতে লাগলো)
,
আমি:এই কি হচ্ছে কি, আপনি আমার কাছে 😨😨😨আসছেন কেনো——-

একদম আমার কাছে আসার চেষ্টা করবেন না কিন্তু ,

ভুলে যাবেন না এটা আমার বাড়ি আপনার নয় ।
,

পারভেজ:আরে আমি আবার কি করলাম😒😒 ,

তুমিই তো বলছো বলতে কেমন সুন্দর😎।
,

আমি:হে বলেছি 😡,
কিন্তু তাই বলে কাছে আসতে হবে নাকি দূরে থেকে বলুন—-
,

পারভেজ:আরে বাবা আগে তো আমার কাজটা করতে দাও ,
পরে না হয় বলছি কেমন দেখতে আমার কলিগ মেয়েটা 😜😜।
,

আমি: আপনার কাজ মানে -নে-নে😕 কি বলতে চান-ন-ন আপনি হে😕
,

পারভেজ :আগে তো করি তারপর বলবো😉 ।

তুমি এদিকে আসো তো ।
,

আমি:আমি এদিকে আসবো মানে কি😨!!

একদম কাছে আসবেন না বলছি 😬😬,

নাহলে আমি আপনাকে কামড় দেব 😠😠 কিন্তু
,

(কিন্তু কে শুনে কার কথা পারভেজ তুলির আরো কাছে চলে আসে,
আর তুলি তার চোখ বন্ধ করে ফেলে,
অনেক ক্ষন পারভেজ এর সারা শব্দ না পেয়ে তুলি চোখ খুলে অবাক🙄😳😳 হয়ে দেখে পারভেজ ট্রাই বাঁধছে)
,
,

আমি: আপনি ট্রাই পড়ছেন😰😰
,

পারভেজ:হে কখন থেকে বলছি তুমি এই দিকে আসো ,

তাহলে আমি আয়নার সামনের থেকে ট্রাই টা নেব ,

কিন্তু তোমার কখন থেকে এক কথা ,

কাছে আসবো না,
আরে কাছে না আসলে আমার ট্রাই টা নেবো কেমন করে😐
,

আমি:😠😠😠 কি ই ই , আপনি কখন বললেন ট্রাই নেবেন ,
আমি তো মনে করেছি😶😶 —-
,

পারভেজ:এই তোমাদের পিচ্ছি মেয়েদের একটাই সমস্যা,
সব সময় উল্টাপাল্টা চিন্তা ভাবনা নিয়ে ঘুরো ফিরো😏😏 ।
,

আমি:কি আমি পিচ্ছি 😤😤😤
,

পারভেজ: অবশ্যই তুমি পিচ্ছি,
না হলে এসব চিন্তা ভাবনা আসে কোথার থেকে,
আরে হে জিজ্ঞাসা করেছো না আমার কলিগ কেমন সুন্দর😊😊
,

আমি: হুম বলেন😤😤(দাঁতে দাঁত চেপে) কেমন 😬
,

পারভেজ: আমার কলিগ পরীর😜😝 মতো কিউটের ডিব্বা , অনেক সুন্দর🤗🤗
,

(এই বলে পারভেজ চলে গেলো বাইরে আর তুলি রাগে ফুলছে 😠😠😠😤😤😤)
,
,

আমি :বুড়ো লুচু বর😡,
খাটাস কোথাকার তোর মাথা আমি পাটিয়ে ফেলবো 😠 ডিম🥚🥚 দিয়ে,

এতো বড় সাহস আমার সামনে আরেক মেয়ের তারিফ করিস ,
আমি ও তুলি এর প্রতিশোধ নেবে বুইড়া কোথাকার 😒😒
,
,

হঠাৎ ঘরে আম্মু এসে —
,

আম্মু:কিরে তুলি মা কি হয়েছে কি তোর ,
আর জামাই বাবাজির বা কি হলো,
দেখলাম হাসতে হাসতে বের হলো ,
কোথায় গেলো এই ভরদুপুরে।
,

আমি: আমি কি করে জানবো তোমার গুনোধর জামাই হাসলো কেনো
আর কোথায় গেলো😬😬
,

আম্মু:এমন করে কথা বলছিস কেনরে মা ,

এখনোও রেগে আছিস ,
আর তুইও কি কালকে চলে যাবি।
,

আমি:হে চলে যাবো😒 ,তোমরা তো তাই চেয়েছো ,
যাতে আমি এই বাসা থেকে চলে যায় ।
আচ্ছা আম্মু আমি কি আসলেই তোমাদের মেয়ে?
,

আম্মু:তুলি এসব কেমন প্রশ্ন ,
আমি বুঝতে পারছি তোর বাবা সব সময় জেদ করে,

কিন্তু সবি করে আমাদের ই ভালোর জন্যই ,

আর তুই কিনা উল্টো ভুল বুঝছিস তোর বাবাকে😕
,

আমি:বাবা সব সময় ভালো চায় আমার জানি ,

কিন্তু বাবার সব সিদ্ধান্ত কেনো সবসময় আমার ঘাড়ের উপরেই ফেলতে হবে বলো মা,

ওহ আমি মেয়ে বলে তাই না আম্মু,
তোমাদের জীবনের ভোজা🙁☹️ ,
,
,

আম্মু:নারে মা তোর বাবা তোকে অনেক ভালোবাসে,

তোর চিন্তায় তোর বাবা রাতে ঠিক মতো ঘুমাতেও পারে না।
,
,

(তুলি আর তার মার এসব কথা তুলির বাবা বাইরের থেকে শুনছেন আর শুনতে না পেরে নিজের ঘরে চলে গেলেন)
,
,

আমি: ভালোবাসা এতো নিষ্ঠুর হয় কেনো আম্মু বলতে পারো?
,

আম্মু: আমি বুঝতে পারছি রে মা,
তুই এখনোও তোর আব্বুর উপর অভিমান করে আছিস।
কিন্তু দেখিস -একদিন তুই ঠিকি বুঝবি তোর আব্বুই ঠিক ছিলো।
আচ্ছা রে মা তুই বিশ্রাম নে আমি নিচে যায় কাজ আছে,
,

আমি: আচ্ছা যাও।
,

(আম্মু চলে যাওয়ার পরে আমি বিছানায় শুয়ে পড়লাম এবং
ঘুমিয়ে পড়লাম কখন নিজেও জানি না)
,
,
,
,
ঘুম থেকে উঠে দেখলাম পুরো ঘর অন্ধকার,
তাই যলদি উঠে লাইট ধরিয়ে ঘড়ির দিকে তাকিয়ে দেখলাম ৭.৩৬pmবাজে ।
ভাব বাহ অনেকক্ষণ ধরে আমি ঘুমাচ্ছি‌।
তাই নিচে নেমে আম্মু কে খুঁজতে লাগলাম ।
আম্মু সোফাই বসে আছে , আমি গিয়ে বললাম–
,

আমি: এতোক্ষণ হয়ে গেলো ডাকলে না কেনো আম্মু,
,

মা:তুই ঘুমাচ্ছিলি তাই বিরক্ত করিনি মা।
,
আমি:ওহ আব্বু কোথায়?
,

মা:এই তো একটু বাইরে গেছে
,

আমি:আর উনি এখনোও আসে নি?
,

মা:উনিটা আবার কেরে🙂
,

আমি :আরে তোমার গুনোধর জামাই 😒😒।
,

মা:ওহ জামাই বাবাজির কথা বলছিস ,
,

আমি : হুম😐
,

মা:না এখনোও তো আসলো না ,
তুই এবার ফোন দিয়ে দেখতো কোথায় ছেলেটা
,

আমি:পারবো না আমি কাউকে ফোন দিতে ,
,

মা :দে না মা একটু
,

আমি: আচ্ছা দিচ্ছি ,
ঘরে মোবাইল রেখে এসেছি গিয়ে কল দিচ্ছি
,

মা : আচ্ছা গিয়ে কল দে তো মা ।
,

(ঘরে এসে ফোন টা হাতে নিয়ে,
🤔 আরে আমার বুড়ো বরটার ফোন নাম্বার ও তো নেই আমার কাছে,
তাই আবার নিচে গিয়ে আম্মু কে বললাম—-
,

আমি: আম্মু —–
,

মা:কিরে কল করেছিস?
,

আমি:আরে কল করবো কোথায় ?
উনার নাম্বার ই তো নেই আমার কাছে।
,

মা:কি বলিস এখনোও একটা নাম্বার নিতে পারিস নি জামাইরা থেকে ,
যা আমার ঘরে গিয়ে ,তোর আব্বু ডায়রিতে থাকতে পারে দেখ আছে,
,

আমি: আচ্ছা আম্মু দেখছি,
,

এই বলে আমি আম্মু আব্বুর ঘরে এসে ডাইরিতে উনার নাম্বার খুঁজে পেলাম ,
সাথে সাথে নাম্বার টা ডায়রি থেকে তুলে বুড়ো বর লিখে 😆😆সেভ করে কল দিলাম ,
,

দুইবার কল দেবার পর ও বুড়ো খাটাস টা কল রিসিভ করলো না😡😡,

নিশ্চয়ই ওই কলিগ এর সাথে রোমান্টিকতা করছে রাস্তা ঘাটে যতোসব বুড়ামি😤 ।

আর শাকচুন্নী 👿👿এতোই যাতে বুড়ো লোকের সাথে ঘুরার শখ তাহলে তুই বিয়ে করে নিতি আমি বেঁচে যেতাম।

আর একবার কল দেব এখন যদি না ধরে আর কল দিতে পারবো না আমি।

,
তিনবার কল দেওয়ার সাথে সাথেই ফোনটা ধরলো খাটাসটা😤😤😤
,

পারভেজ:হ্যালো কে বলছেন——-
,
চলবে…

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here